ব্লগ লিখে আয় ৫ হাজার ডলার

শুরুতেই বলে রাখি টাইটেল দেখেই কেউ হুমড়ি খেয়ে আর্টিকেলটি পড়তে আসবেন না। ৫ হাজার ডলার কোনো মুখের কথা নয়। বাংলাদেশি টাকায় হিসেব করলে প্রায় ৪ লক্ষ বা সাড়ে ৪ লক্ষ টাকার মতো!!!গুগল আমার-আপনার শ্বশুর লাগেনা যে আমরা বললেই সে আমাদেরকে খুশি হয়ে টাকার বস্তা আমার পাঠিয়ে দিবে। এর জন্য প্রয়োজন প্রচুর সময়, পরিশ্রম ও লেগে থাকার মনোভাব সৃষ্টি করতে হবে। তবে উপরের ২ লাইন পড়েই যেনো আবার এখন ব্লগটি স্কিপ করে চলে যাবেন না। তাহলে মিস করবেন।

 ব্লগ লিখে আয় করুনব্লগ লিখে আয় করার উপায়

সবার প্রথমে আপনাকে যেকোনো কাজেই পরিশ্রম করার মানসিকতা নিয়ে শুরু করতে হবে। আপনি যদি বিদ্যার জাহাজ হন তবুও লাভ পাবেন না যদি না আপনি পরিশ্রমী হন।

হাতে ২ বছর টার্গেট রাখবেন। তবে শুরু করবেন  ১ বছরকে লক্ষ্য করে। সর্বোচ্চ দেড় বছর টার্গেট নিবেন। কিন্তু ২ বছর হাতে নিয়ে তারপর মাঠে খেলতে নামবেন। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

ব্লগ লিখে আয় এর ক্ষেত্রে পারতপক্ষে  চেষ্টা করবেন না ওয়ান ম্যান আর্মি হওয়ার জন্য। একসাথে সব করতে যাবেন না [কেউ আবার কমেন্টে এসে সাকিব আল হাসানের কথা বলতে আসবেন না।]।

চেষ্টা করবেন টিমওয়ার্কের মাধ্যমে কাজ শুরু করতে। তাহলে সফলতা যেমন দ্রুত দেখতে পাবেন  তেমনি ইনকামটাও মনের মতো করতে পারবেন। আমি আপনাকে যতই ঠেলা দেই কেন আপনি একদিনে হয়ত সর্বোচ্চ পরিশ্রম করলে ভালোমানের ৫টি আর্টিকেল আর ৫টি ইমেইল আউটরিচ করাতে পারবেন।

ব্লগ লিখে আয় করার উপায়
ব্লগ লিখে আয় করার উপায়

কিন্তু এগুলো ছাড়া আরো অনেক কাজ আপনাকে করতে হবে। এই যেমন: ওয়েবসাইট এর র‍্যাংক ট্র্যাক করা, ব্যাসিক ব্যাকলিংকগুলোকে ম্যানেজ করা, কনটেন্ট পাবলিশ করা ইত্যাদি ইত্যাদি।

পড়ুন ফ্রিতে ব্যাকলিংক পাবার উপায়

ব্লগ লিখে কিভাবে আয় করা যায় ,ব্লগ লিখে আয় করুন

মাত্রাতিরিক্ত প্রেশার নিয়ে কোনো কাজ শুরু করতে গেলে পরে আর কাজই করতে মন চাবে নাহ। এক সময় দেখবেন সবকিছু ছেড়ে ছুড়ে দিয়ে ৩ মাস পর আমার এই পোস্টটা এসে খুজবেন আর একটি গালি দিয়ে যাবেন।

এখন আপনার কাছে যদি ভালো পরিমানে টাকা থাকে, তাহলে এমন একটা নিশ সিলেক্ট করুন যে নিশের প্রতিযোগীতা মোটামুটি আছে এবং এই নিশটা মানুষ এর মধ্যে ভয়ের সৃষ্টি করে।কারন এই নিশে রাংক করতে গেলে আপনাকে টাকা খরচ করতে হবে; যেহেতু প্রতিযোগীতা মোটামুটি আছে। একটা উদাহরন দিই, তাহলে বুঝতে সুবিধা হবে। যেমন আপনি যদি একটু চিন্তা করেন তাহলে বুঝতে পারবেন যে ডাক্তারে কাছে সাধারনত খুব ভয় পেয়ে তারপর যায়।

SORRY FOR RELATED TAGS:

ব্লগ লিখে আয় করার উপায় ,
ব্লগ লিখে আয় করুন ,
ব্লগে লিখে আয় ,
বাংলা ব্লগ লিখে আয় ,
ব্লগ লিখে কিভাবে আয় করা যায় ,
বাংলায় ব্লগ লিখে আয় ,
ব্লগ লিখে টাকা আয় ,
ব্লগে লিখে টাকা আয় ,
ব্লগ লিখে আয় ,

এটা ভয়ের একটা সৃষ্টি হয় মানুষের মধ্যেই। প্রশ্ন করতে পারেন, কিভাবে?ধরুন একজন মানুষের কিছুদিন যাবত তার কিডনির পাশে কোমর এর দিকে ব্যথা করে। আমি গ্যারান্টি দিয়েই বলতে পারি এই লোক শুরুতেই ডাক্তারের কাছে চলে যাবে না। এই লোক প্রথমে গুগলে গিয়ে সার্চ করবে যে কিডনির সমস্যা হলে শরীরে কি কি লক্ষন দেখাদিতে পারে। এখন আমি ধরেই নিচ্ছিযে আপনার সাইটে এরকম একটা আর্টিকেল আছে এবং সেটির মোটামুটি রাংকও আছে। এবার উক্ত ভদ্রলোক যখন গুগল থেকে আপনার সাইটে ঢুকবে, তখন সে আপনার ওয়বসাইট থেকে খুব ইজিলি কিডনি রোগের কি কি ধরণের লক্ষন থাকতে পারে সেসব জেনে যাবে। কিন্তু তাতে কি তার মন ভরবে?কখনোই না। আরেভাই, মানুষ এসব ব্যাপারে মারাত্নক খুতখুতে মনোভাবের।

ব্লগে লিখে আয়অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে ২০২০

ঠিক তখনি দেখবেন আপনার সাইটের কনটেন্ট এর মাঝখানে মাঝখানে যেখানে গুগল অ্যাডসেন্সের এড আছে সেখানেই গুগল হয় এই রিলেটেড অন্য কোনো ব্লগের অ্যাড দেখাবে বা কোনো কিডনি স্পেশালিস্ট এর সাইটের এড শো করছে। দেখামাত্রই উক্ত ভদ্রলোক নির্ঘাত ওই এড ক্লিক করে উক্ত সাইটে চলে যাবে এই বিষয়টি নিয়ে আরো বিস্তারিত কিছু জানতে বা হলে তিনি হয়তো আপনারই সাইটের অন্য কোনো কনটেন্ট এর উপর ক্লিক করে সেটি পড়তে পারে।

কিন্তু ভদ্রলোক যাই করুক, দেখবেন দিন শেষে লাভ কিন্তু আপনারই হচ্ছে। হয় গুগলের অ্যাডে ক্লিক করে (CPC) উনি আপনার পকেটে টাকা দিচ্ছেন কিংবা গুগল এর এডটি দেখে (CPV) উনি আপনার পকেটে টাকা দিচ্ছেন। এরকম করে যেইভাবেই হোক না কেনো, দিচ্ছে তো? কিন্তু আপনি যদি একই সাইট কোনো কুকুর বিড়ালের স্বাস্থ্য নিয়ে করেন। লাভ নাই। কারন এইসব নিয়ে মানুষ তেমন একটা ভয় কিংবা ইন্টারেস্ট পায়না । তাই আপনি যদি ক্যান্সার, হৃদরোগ ইত্যাদি বিভিন্ন টপিকের উপর ওয়েবসাইট থাকে এবং সেগুলোকে আপনি গুগলে র‍্যাংক করাতে পারেন এসইও করে তাহলে আপনার লালে লাল শাহাজালাল হতে খুব একটা সময় লাগবে না। তবে এবার ব্লগ লিখে আয় এর নিরাশার কথা বলি।অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে ২০২০

উপরের আমি যেসব টপিকের কথা লিখলাম সেসব সুপার কম্পিটিটিভ টপিক। আবার বলি, হয়ত খেয়াল করেন নি এগুলো খুব প্রতিযোগী টপিক। এইসব টপিকে গুলোতে র‍্যাংক করার জন্য আমার আপনার মতো আরও অনেকে বসে আছে। তাই আপনি যদি খুন ধুরন্ধর মার্কা SEO না জানেন, তাহলে মোটেই কাজ করতে পারবেন না। সেক্ষেত্রে আপনার টিমে এমন কোনো এসইও পাবলিককে রাখতে হবে যিনি ওই “ধুরন্ধর” মার্কা এসইও জানেন।আর এক ক্লিক দিয়ে দেখে আসুন ফ্রিতে কিওয়ার্ড র‍্যাংক দেখার উপায়।
তবে হ্যাঁ এবার একটা ছোট আশার বানী বলি, এমন কোন কোন নিশ আছে যেগুলোতে কম্পিটিশন খুব কম আবার মানুষ সেগুলোকে ভয়ও পায় সেটা রিসার্চ করারও টেকনিক আছে এবং উপরে যে টপিকের কথা বললাম সেইসব টপিকেরও এমন কিছু কীওয়ার্ড আছে যেগুলি দিয়ে কাজ করে আশা করা যায় আপনি ইনশাল্লাহ্ র‍্যাংক করতে পারবেন। যাইহোক, এখন একটা এস্টিমেটিং দেখানোর পালা। পোস্টের শুরুতেই একটা টাইটেল দিয়ে আপনাদেরকে পোস্টের ভিতরে নিয়ে এসে এতো কষ্ট করে ব্লগ লিখে আয় বিষয়ক পুরো লিখাটি পড়ালাম। একটা ছোট্ট হিসাব দেই । “kidney failure symptoms” – এই কিওয়ার্ডে প্রতিমাসে গুগলে সার্চ পড়ে 60,500টি। তাদের মধ্যে সবাই তো আর আপনার সাইটে যাবে না। কেউ যাবে ১ম রেজাল্টে, কেউ যাবে ৮ম রেজাল্টে। আবার কেউ কেউ আপনার সাইটেও ঢুকবে।আমি ধরে নিলাম যে তার মধ্যে অর্ধেক মানুষ ঢুকল আপনার ওয়েবসাইটে। তারমানে 30,250 জন। এখন সবাইতো আর আপনার এড এ ক্লিক করবে না।সেখেত্রে ব্লগ লিখে আয় কিছুটা কম হবে।

কেউ কেউ আপনার অন্য আর্টিকেলটিতে যাবে, কেবা আবার আপনার সাইট থেকে সাথে সাথে বের হয়ে যাবে আবার কেউ কেউ এডেও ক্লিক করবে।ধরে নিলাম ১০% আপনার এডে ক্লিক করল; তার মানে দাঁড়ায় 3,025 জন। এই কিওয়ার্ডটির সিপিসি হচ্ছে $0.21।তারমানে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে $635.25‬ ডলার আপনার এক মাসেই ইনকাম হয়ার শুধুমাত্র এই একটি আর্টিকেল থেকে। আর আপনি নিশ্চই এই একটি মাত্র আর্টিকেল নিয়েই বসে থাকবেন না? গড়ে একেকটা অ্যাডসেন্স সাইটে আপনার প্রায় ৫০/৬০টা করে আর্টিকেল থাকে। আর আমি যদি গড়ে প্রতিটি ব্লগ থেকে মাসে ১০০ ডলার করে হিসাব করি তাহলেও তো আপনার মাসে ৫ হাজার ডলার ব্লগ লিখে আয় থাকার কথা।

কিন্তু হ্যাঁ শুনেন ভাই, আমার এই আর্টিকেল আর এই ইস্টিমেটিং দেখামাত্রই হুট করে সাইট বানিয়ে ঝাপিঁয়ে পড়বেন না হাজার হাজার ডলার ইনকাম এর আশায়।কাঁচা টাকার গন্ধে পাকা টাকা নষ্ট করবেন না।পোস্টের শুরুতেই আপনাকে বলেছিলাম গুগল কিন্তু শ্বশুর লাগেনা যে আমি সাইট বানালেই আর এরকম একটা নিশে কয়েক’শ ভিজিটর আনলেই সে আমাকে বাসায় ডলারের প্যাকেট পাঠিয়ে দিবে।এর জন্য আপনাকে অনেক অনেক পরিশ্রম করতে হবে। সাইট বানানো, কনটেন্ট রাইটিং করা, কনটেন্ট পাবলিশড করা, এসইও করা ইত্যাদি ইত্যাদি আরো অনেক কাজ আছে।

অনেকে আছে যারা গুগলে সার্চ করে কোনো রেজাল্টেই ক্লিক না করে আবার অন্য কিছু লিখে সার্চ দিয়ে দেয়।আবার অনেকে আছে আপনার সাইটে এসে ঢুকবে কিন্তু কোনো অ্যাডেই ক্লিক করবে না (সেক্ষেত্রে অবশ্য আপনি CPV কমিশনটা পাবেন। কিন্তু ব্লগ লিখে আয় খুব একটা বেশি হবে না।)আবার আপনি যদি এমন কীওয়ার্ড সিলেক্ট করেন যেখানে ৭০% মানুষ সার্চই করে দক্ষিন এশিয়া থেকে তাহলেও হবে না। কারন আমাদের এই দক্ষিন এশিয়ার দেশগুলোর সিপিসি অনেক কম গুগল অ্যাডসেন্সের কাছে।তাই আপনাকে প্রচুর স্টাডিতে করে অনেক রিসার্চ করে নিশ সিলেক্ট করে কীওয়ার্ড নির্বাচন করে কনটেন্ট দিয়ে তারপর রাংক করতে হবে।এবং রাংক করলেই শেষ না, আপনাকে সেই রাংক ধরেও রাখতে হবে।আশা ব্লগ লিখে আয় বুঝাতে পেরেছি। আপনাদের অনেক অনেক ধন্যবাদ এতো কষ্ট করে পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য।

টাগসঃ

অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে ২০২০,
অনলাইন ইনকাম সাই্‌ট,
অনলাইন ইনকাম ২০২০ ,
অনলাইন ইনকাম অ্যা্‌প,
অনলাইন ইনকাম বিকাশ পেমেন্ট ,
অনলাইন ইনকাম সাইট ২০২০ ,
অনলাইন ইনকাম ২০২০,
অনলাইন ইনকাম সোর্স ,
অনলাইন ইনকাম করার অ্যাপ ,
online a income ,
অনলাইন এ ইনকাম ,
অনলাইনে ইনকাম ,
অনলাইনে টাকা ইনকাম ,
অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম ,
অনলাইন ইনকামের উপায় ,
অনলাইনে ইনকামের উপায় ,
অনলাইন ইনকাম করার উপায় ,
online income করার উপায় ,
অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ,
অনলাইন ইনকামের সহজ উপায় ,
অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২০ ,
অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় ,
অনলাইন ইনকাম এপস ,
অনলাইন এ ইনকাম করতে চাই ,
online এ ইনকাম করার উপায় , ,
online এ ইনকাম ,
অনলাইন এ টাকা ইনকাম ,
অনলাইনে সহজে ইনকা্‌ম ,
অনলাইনে ইনকাম করার ওয়েবসাইট ,
অনলাইন টাকা ইনকাম , 
অনলাইন ইনকাম কোর্স ,
অনলাইন ইনকাম কিভাবে করব ,
অনলাইন ইনকাম কিভাবে ,
কিভাবে অনলাইনে টাকা ইনকাম করা যায় ,
অনলাইন ইনকাম কিভাবে করে , 
কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায় ,
অনলাইনে টাকা আয় করার উপায় ,
অনলাইনে টাকা আয় ,
অনলাইন গেম ইনকাম ,
অনলাইনে সহজ ইনকাম ,
অনলাইনে ইনকাম করতে চাই , 
সহজে অনলাইন ইনকাম ,
online income ,
অনলাইন ইনকাম জব ,
অনলাইনে আয় করার ওয়েবসাইট ,
অনলাইন থেকে ইনকাম ,
অনলাইনে আয় করার সাইট ,
অনলাইন থেকে টাকা আয় ,
অনলাইন ইনকাম ট্যাক্স ,
অনলাইন ইনকাম টিপস ,
online income টিপস ,
অনলাইনে ইনকাম টাকা বিকাশে ,
online টাকা ইনকাম ,
online টাকা income ,
অনলাইনে ডলার ইনকাম ,
অনলাইন ইনকাম বাংলাদেশ ,
অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায় ,
অনলাইন থেকে ইনকাম করুন ,
কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় ,
অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে ,
online income no investment ,
online income করার নিয়ম ,
অনলাইনে ইনকাম করার নিয়ম ,
নতুন অনলাইন ইনকাম ,
অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি ,
অনলাইন ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট ,
অনলাইনে ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট ,
অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি ,
প্রতিদিন অনলাইন ইনকাম ,
ফ্রি অনলাইন ইনকাম ,
ফেসবুক অনলাইন ইনকাম ,
অনলাইন ইনকাম বিডি ,
অনলাইন ইনকাম বই pdf ,
অনলাইন ইনকাম বিকাশ ,
অনলাইন ইনকাম বই ,
অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট ,
বাংলাদেশের অনলাইন ইনকাম সাইট ,
বাংলাদেশ অনলাইন ইনকাম ,
বাংলাদেশে অনলাইন ইনকাম ,
বাংলা অনলাইন ইনকাম ,
অনলাইন ইনকাম মোবাইল রিচার্জ ,
অনলাইন ইনকাম মোবাইল ,
অনলাইন মানি ইনকাম ,
মোবাইলে অনলাইন ইনকাম  ,
মোবাইল দিয়ে অনলাইন ইনকাম ,
অনলাইনে আয় করার উপায় ,
অনলাইন থেকে টাকা আয় করার উপায় ,
online ইনকাম সাই্‌ট,
অনলাইনে ইনকাম সোর্স,
online income 2020

অনলাইন ইনকাম ,

Comment Here

Your email won't be public

You can use these HTML tags and markups: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

*